সরকারি হাসপাতাল এবং বেসরকারি হাসপাতাল এর মধ্যে পার্থক্য | Government Hospital

সরকারি হাসপাতাল এবং বেসরকারি হাসপাতাল এর মধ্যে পার্থক্য | Government Hospital

হাসপাতাল শব্দটি আমাদের জীবনের একটি অংশের সাথে মিশে আছে।কারন হাসপাতাল এর প্রয়োজন আমাদের প্রতিনিয়ত পড়ে থাকে।নানা কারনে আমাদের বা আমাদের পরিবারের কারো না কারো হাসপাতালে যাওয়ার প্রয়োজন পড়ে।শারীরিক এবং মানসিক উভয়ই সমস্যার জন্য আমাদের হাসপাতালে যাওয়ার প্রয়োজন পড়ে।কিন্তু হাসপাতাল এর মধ্যেও কিছু পার্থক্য আছে।আমরা হয়তো সবাই জানি যে হাসপাতাল মূলত দুই ধরনের থাকে।একটি হলো সরকারি হাসপাতাল এবং অন্যটি হলো বেসরকারি হাসপাতাল।কিন্তু আমরা হয়তো অনেকেই এটা জানি না যে সরকারি এবং বেসরকারি হাসপাতাল এর মধ্যে পার্থক্য কি।সেটি জানার জন্যই এই আর্টিকেলটি আপনাদের সামনে নিয়ে এসেছি।তাই শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত আর্টিকেলটি পড়তে থাকুন।

সরকারি হাসপাতাল এবং এর কার্যাবলি

সরকারি হাসপাতাল মূলত সরকারিভাবে পরিচালিত হয়।এখানে বিনামূল্যে রোগীদের চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়।যার কারনে সাধারণ মানুষরা অনেক সহজেই তাদের যেকোনো সমস্যার জন্য চিকিৎসা সেবা পেয়ে থাকে।এতে তাদের কোন ভোগান্তিতে পড়তে হয় না।সরকারি নিয়োগের মাধ্যমে এখানে ডাক্তার এবং নার্স নিয়োগ পেয়ে থাকে।এবং তাদের অক্লান্ত পরিশ্রম দ্বারা সাধারণ মানুষজন তাদের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিতভাবে ভোগ করে থাকে।সরকারি হাসপাতাল ২৪ ঘন্টাই চালু থাকে।যার ফলে দেশের সাধারণ নাগরিকগণ যেকোন সময় চিকিৎসা সেবা পেয়ে থাকে।বাংলাদেশের সব জেলা এবং উপজেলাতেই সরকারি হাসপাতাল রয়েছে।

বেসরকারি হাসপাতাল এবং এর কার্যাবলি

বেসরকারি হাসপাতাল সাধারণত কোন নির্দিষ্ট একজন মানুষ অথবা প্রতিষ্ঠান দ্বারা পরিচালিত হয়।এতে সরকারি কোন হস্তক্ষেপ থাকে না।কোন মানুষ যখন মানুষদের চিকিৎসা সেবা প্রদানের জন্য হাসপাতাল তৈরি করে সেটিই বেসরকারি হাসপাতাল নামে পরিচিত।বেসরকারি হাসপাতালে মূলত টাকা দিয়ে চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করতে হয়।বিভিন্ন হাসপাতালে টাকার পরিমাণ বিভিন্ন রকমের হয়ে থাকে।টাকার বিনিময়ে হলেও মানুষ চিকিৎসা পাবার জন্য হাসপাতালে প্রতিনিয়ত যায়।বেসরকারি হাসপাতাল তাদের নিজস্ব নিয়ম অনুযায়ী পরিচালিত হয়ে থাকে।তাদের যদি মনে হয় তারা কোনদিন হাসপাতাল বন্ধ রাখবে তাহলে তারা সেটি করতে পারবে।কিন্তু সাধারণ মানুষ যেনো চিকিৎসা পেতে হয়রানির শিকার না হয় সেক্ষেত্রে বেসরকারি হাসপাতালও প্রতিদিন তাদের চিকিৎসা সেবা পরিচালনা করে থাকে।

আরো দেখতে পারেন: গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি তথ্য
আরো দেখতে পারেন: হাতের লেখা সুন্দর করার উপায়

সবশেষে বলতে চাই হাসপাতাল আমাদের জীবনের জন্য অপরিহার্য।কারন আমরা যতদিন বেঁচে থাকবো ততোদিন কোন প্রয়োজনে হাসপাতালে যেতে হবে।চিকিৎসা সেবা ছাড়া বর্তমানে বেঁচে থাকা অসম্ভব।আর মানুষের চিকিৎসা সেবা প্রদান করার লক্ষ্যেই হাসপাতাল পরিচালিত হয়।সব ধরনের রোগ এবং সমস্যার জন্য হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা নেওয়া হয়।যদি হাসপাতাল না থাকতো তাহলে মানুষের জীবনে চিকিৎসার অভাব দেখা দিতো।রোগ অথবা অন্য যেকোন সমস্যার জন্য চিকিৎসা সেবা পাওয়া থেকে দূরে থাকতো।বর্তমানে যেকোন কিছুর জন্যই হাসপাতালে যেতে হয়।আমাদের উচিত যেকোনো রোগ অথবা সমস্যা দেখা দিলে দেরি না করে যত দ্রুত সম্ভব হাসপাতালে যাওয়া।শুধু আমরা না,আমাদের যেকোনো পরিচিত অথবা আত্মীয় স্বজনরাও যদি চিকিৎসা সেবা নিতে চায় তাহলে দেরি না করে হাসপাতালে নিয়ে যেতে হবে।

চলমান ৩টি সরকারি চাকরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেখুন
১.সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসকের কার্যালয় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২২ 
২.লালমনিরহাট জেলা প্রশাসকের কার্যালয় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি 
৩.কমিউনিটি ক্লিনিক চাকরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি 

Leave a Reply